বাসা সাজানোর জন্য ২৫ টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়

Updated: Nov 18, 2020

জীবনের বিভিন্ন বিষয়ের মত আপনার ডিজাইন দক্ষতাও সময়ের সাথে সাথে আরো ভাল হয়।যদি আপনি বাসায় অনেকবার নতুন ডিজাইন এবং নতুনত্ব যোগ করে থাকেন,তাহলে আপনি আপনার পছন্দের ওয়েবসাইটস,ম্যাগাজিনস,ইন্সটাগ্রাম থেকে অনুপ্রাণিত হতে পারেন আপনার ঘরকে সুন্দরভাবে সাজানোর জন্য। আপনি নতুন কৌশল, ধারনা,ব্র্যান্ড ব্যবহার করে আপনার সৌন্দর্য বোধ প্রকাশ করতে পারেন।আপনার ডিজাইন সম্বন্ধে জ্ঞান এবং বিবর্তন একটা প্রক্রিয়া;আপনি আপনার চারপাশ সবসময় সৌন্দর্যমন্ডিত রাখার জন্য নতুন পদ্ধতিগুলো খুঁজে বের করতে পারেন।যদি আপনি আপনার পুরনো আসবাবপত্রগুলো পরিবর্তন করতে চান এবং ঘরের মধ্যে নতুনত্ব আনতে চান,তাহলে এখানে যেসব পদ্ধতি উল্লেখ করা হবে সেগুলো গ্রহণ করতে পারেন।

বাসা যদি খুব সিম্পল ( সিম্পল বাসা) রাখতে চান, সেক্ষেত্রে আমাদের আর্টিকেল পড়তে পারেন



এখানে ২৫ টি জিনিস বা বিষয়ের মাধ্যমে কীভাবে আপনার বাসাকে আপনার পছন্দমত নান্দনিক করে তুলতে পারবেন সে বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে।


১.গাছপালা দিয়ে সাজানো:

শোবার রুমে কিছু সবুজের ছোয়া


গাছপালা বাসার সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে।বাসার ভিতরের গাছপালা থাকলে বাতাস চলাচল বৃদ্ধি করে,ক্লান্তিবোধ ও বিষণ্ণতা দূর করতে সাহায্য করে।যখন গাছে অনেক ফুল ফোটে তখন মন প্রফুল্ল হয়।বাড়িতে গাছপালা যেমন অনেক উপকার করে,তেমনি শোভা বর্ধনও করে।

২.ওয়ালপেপার:


ওয়ালপেপার ঘরের সৌন্দর্য বাড়াতে সাহায্য করে

"আমরা অনেকে ভাড়া বাসায় থাকি,যেখানে নিজের ঘরকে নিজের মনে করা কঠিন হয়ে পড়ে"-বলেছেন এলিজাবেথ রিস,একটি ওয়ালপেপার কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা।"যেখানে আপনি বাস করেন সেটা আপনার নিজের বাড়ি হলেও ভবিষ্যতে আপনাকে চলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।তাই এক্ষেত্রে বাড়িতে যেন আপনার জীবনযাপন এবং মতাদর্শের প্রতিফলন ঘটে, সেদিকে গুরুত্ব দেওয়া উচিত"।স্বাভাবিকভাবে,এমন ওয়ালপেপারগুলো পছন্দ করা উচিত যেগুলো সহজেই একস্থান থেকে অন্যস্থানে সরানো যায়।যাতে আপনি আপনার পরবর্তী বাসায় এগুলো নিয়ে যেতে পারেন।আপনি বিভিন্ন ধরনের ওয়ালপেপার ব্যবহার করতে পারেন।এগুলো ঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে।


৩.তাক বা হেডবোর্ড লাগান:

বিছানার উপর হালকা পেইন্টিং
তাক বা হেডবোর্ড ডেকোর

আপনি আপনার বিছানার উপর হেডবোর্ড বা তাক লাগাতে পারেন, যেখানে বিভিন্ন ধরনের ডেকোরেশন রাখতে পারেন। এটা শোবার ঘরে নতুনত্ব যোগ করে। এছাড়া বিছানার উপর হালকা পেইন্টিংও দিতে পারেন

৪.খাবার টেবিল সাজানো:


একটা নির্দিষ্ট সময়ের পর থালা,বাটি,চামচ পুরনো হয়ে যায় এবং ব্যবহার করার উপযুক্ত থাকে না।তখন এগুলো নতুন ডিজাইনের কেনা উচিত।শুধুমাত্র মানানসই থালা,বাটি কিনলেই হবে না,এগুলো যাতে ব্যবহার করার জন্য সুবিধাজনক হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।একইভাবে খাওয়ার পর হাতমুখ মোছার জন্য সুন্দর ও পরিষ্কার রুমাল বা টিস্যু রাখতে পারেন।সবকিছুর সমাবেশ আপনার খাবার টেবিলকে আরো বেশি রঙিন ও সুন্দর এবং আপনার খাবার সময়কে আনন্দময় করে তুলবে।


৫.নির্দিষ্ট জায়গায় জিনিস রাখা:

চাবির জন্য ট্রে ব্যবহার করতে পারেন

বর্তমান সময়ে সবাই বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ব্যস্ত থাকে।ঘরের চাবিগুলো খুঁজতে আপনার অনেক সময় অপচয় হয়।একটা ট্রে অথবা বাটি দরজার সামনে রাখুন,আপনি যে জিনিসগুলো হারিয়ে ফেলেন যেমন- চুলের ক্লিপ,ফিতা এবং অবশ্যই চাবিগুলো সেখানে রাখুন।



৬.আপনার আসবাবপত্র এবং মেঝে নিরাপদ রাখা:


বাসার অপ্রয়োজনীয় ভাঙ্গা জিনিসগুলো রেখে দিবেন না।এতে ঘরের জায়গা নষ্ট হয় এবং দেখতেও খারাপ লাগে।আসবাবপত্র আপনার ঘরের বিশেষত্ব ফুটিয়ে তোলে।যখন ঘরের জিনিসপত্র নতুনভাবে সাজানো হয় অথবা এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নেওয়া হয়,তখন যেন মেঝেতে আঁচড়ের দাগ না পড়ে সেজন্য ভারী আসবাবপত্রের নিচে কাপড় বা মোটা কাগজ দিতে পারেন।

৭.বসার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করা:

বসার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করা

আত্নীয়স্বজন,সহকর্মী,বন্ধুবান্ধব প্রায়ই বাসায় বেড়াতে আসে।তাহলে কেন সবার জন্য আরামদায়ক ও সুবিধাজনক বসার ব্যবস্থা করবেন না?চেয়ার,হাতলওয়ালা চেয়ার,সোফা এবং মেঝেতেও মোটা তোষক বিছিয়ে বসার ব্যবস্থা করা যায়।



৮.বিভিন্ন ধরনের বাতি ব্যবহার করা:

বিভিন্ন ধরনের বাতি ব্যবহার করা

"যখন আপনি শুধু উপরে বাতি ব্যবহার করেন সেটা অনেকসময় প্রখর এবং তীব্র অনুভব হয়"-বলেছেন হেথার গোয়েরজেন,তিনি একটি ডিজাইন এবং ক্রিয়েটিভ কোম্পানি পরিচালনা করেন।প্রতিটি আধুনিক বাসায় সবসময় অতিরিক্ত দুই থেকে চারটা বাতি লাগানোর ব্যবস্থা থাকা উচিত যাতে এগুলো আরামদায়ক ও স্বস্তিদায়ক আবহ তৈরি করতে পারে।এছাড়া আপনি টেবিল ল্যাম্প,ডিজাইন করা মোমবাতিদানসহ মোমবাতি এবং ফ্লোর ল্যাম্প ঘরের বিভিন্ন জায়গায় রাখতে পারেন।


দ্বিতীয় পর্ব পড়তে ক্লিক করুন





1,288 views0 comments

5-MinsSolution

Contact us

Tel: +8801713221592

Dhaka, Bangladesh

  • Facebook

Follow us on Facebook