নেগেটিভ চিন্তাধারা আমাদের মনকে যতভাবে প্ররোচিত করে

Updated: Nov 2, 2020

আমাদের মস্তিষ্ক নেগেটিভ চিন্তা খুব বেশি পছন্দ করে। যে কোনো নেগেটিভি চিন্তা যদি আমাদের মাথায় ঢুকে, আমাদের মস্তিষ্ক সেটা নিয়ে সারাদিন পার করে ফেলতে দ্বিধা বোধ করে না।


যেমন ধরুন, আপনি আজকে হঠাৎ করে ২ লক্ষ টাকা উপার্জন করলেন। হয়তো এই টাকা উপার্জন করার কথা ছিল না, কিন্তু আপনি কোনো এক উপায় এই দুই লক্ষ টাকা উপার্জন করেছেন। অনাকাঙ্খিত এই টাকা উপার্জন করার জন্য স্বাভাবিক ভাবে আপনি খুশি থাকবেন এবং হয়তোবা দু-একদিনের মধ্যে এই খুশি আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে। অন্যদিকে, তার কয়েকদিন পর, আপনি যদি কোন এক ভুল বশত কারনে ৫০ হাজার টাকা হারিয়ে ফেলেন। এই ৫০ হাজার টাকা হারানোর বেদনা কিন্তু আপনার দুইদিন পর ঠিক হবে না। এমন কি মাস খানেক পর ও হয়তো আপনি এই ৫০ হাজার টাকা হারানো কষ্ট ভুলবেন না।


আমাদের মধ্যে যে কোনো স্টুডেন্ট এসএসসি তে জিপিএ ৫ পেলে, সবাই মহা খুশি। কিন্তু এই ছেলে যদি HSC তে জিপিএ না পায়, সে হয়তো এই জিপিএ ৫ না পাওয়ার কষ্ট সহজে ভুলতে পারবে না।


অর্থাৎ আমাদের ব্রেইন কোনো পজিটিভ জিনিস যতটা স্বাভাবিকভাবে নিতে পারে; কোন নেগেটিভ জিনিস ততটা স্বাভাবিকভাবে নিতে পারে না। তাই আমাদের উচিত আমাদের ব্রেইনকে রেগুলার পজিটিভ ফিডব্যাক দেওয়া। আমরা যেমন ব্যায়াম করি, আমাদের স্বাস্থ্য ঠিক রাখার জন্য ; ঠিক তেমনি প্রতিনিয়ত আমাদের ব্রেইনকে পজিটিভ ফিডব্যাক দিয়ে আমাদের ব্রেইনকে ও ঠিক রাখতে হবে।

উধারণস্বরূপ আরেকটা গল্পঃ একদা দুইজন সাধু ব্যাক্তি একটি দুর্গম পথ দিয়ে যাচ্ছে, রাস্তাতে অনেক পাথর এবং কাঁদা ছিল। হটাৎ, তারা সেখানে একজন মেয়ে দেখতে পায়, যে এই দুর্গম পথ পার হতে পারছিলো না। এটা দেখে, একজন সাধু ব্যাক্তি মেয়েটি কে কাঁধে করে রাস্তা পার করে দিলো। এই ঘটনার ৫ ঘন্টা পর দুই সাধু হাটতে হাটতে তাদের গন্তব্যে পোঁছালো। এত ক্ষণ পর অন্য সাধু বলে উঠলো, তুমি তো জানো আমাদের কোনো নারীর গায়ে হাত দেয়া নিষেধ, তারপরও তুমি একজন নারীকে রাস্তা পার করে দিলে। এই কথা শুনে, ওই সাধু উত্তর দিলো, আমি তো ওই মেয়েকে আরো ৫ ঘন্টা আগে নামিয়ে দিয়ে এসেছি; কিন্তু, তুমি এখনও ওই মেয়েকে তোমার মাথা থেকে সরাতে পারোনি।


এই গল্পের শিক্ষা হচ্ছে , আমাদের ব্রেন ও ঠিক এক এ রকম কাজ করে। মাথার ভিতর কোনো এক নেগেটিভ চিন্তা ঢুকলে, আমরাও এটাকে ঘন্টার পর ঘন্টা ধরে রাখি। এক নেগেটিভ চিন্তা থেকে সূচনা করে হাজার হাজার নেগেটিভ চিন্তা করে ফেলি, যার হয়তো কোনো অস্তিত্ব ও নেই। তাই যে কোনো নেগেটিভ চিন্তা ধারাকে যত টা কম পাত্তা দেয়া যাই , ততই ভালো।


আপনি এক গ্লাস পানি হাতে নিয়ে ১০ সেকেন্ড ধরে রাখুন, দেখবেন কোনো কষ্ট হচ্ছে না। কিন্তু এই গ্লাস এইবার ১ ঘন্টা ধরে রাখুন, আপনার হাত ব্যথা হবে। আমাদের মাথায় নেগেটিভ চিন্তা গুলো ও ঠিক একি রকম, যতক্ষণ ধরে রাখবেন, ততক্ষন আপনার মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য খারাপ।





আমাদের আর্টিকেল ভালো লাগলে, দোয়া করে শেয়ার দিন এবং আমাদের পেজ এ লাইক দিন যেন প্রতিনিয়ত আর্টিকেল দেখতে পারেন।

https://www.facebook.com/5minssolution/


205 views0 comments

5-MinsSolution

Contact us

Tel: +8801713221592

Dhaka, Bangladesh

  • Facebook

Follow us on Facebook