প্লাস্টিক ও পরিবেশ দূষণ

Updated: Nov 19, 2020

প্লাস্টিক আমাদের দৈনন্দিন জীবনের সঙ্গী। বাসা থেকে শুরু করে, রান্নাঘরের সামগ্রী, বাথরুমের ফিটিং, গাড়ি, খাবার-দাবার প্যাকেজিং সবকিছুতেই প্লাস্টিকের ব্যবহার রয়েছে। প্লাস্টিক যেমন আমাদের জীবনকে অনেক সহজ করে তুলেছে, তেমনি পরিবেশ দূষণে প্লাস্টিক এর অবদান খুবই বেশি।

আপনি জানেন কি? এক টুকরো প্লাস্টিক পুরোপুরি পরিবেশের সাথে মিশে যেতে সাড়ে ৪০০ থেকে ৬০০ বছর সময় লাগে। এক বছরে প্রায় ৩০০ কোটি প্লাস্টিকের পণ্য পৃথিবীতে তৈরি করা হয়। তার মধ্যে ৮০ লাখ প্লাস্টিক সমুদ্রে নিক্ষেপ করা হয় এবং এই ৮০ লাখের মধ্যে ১০ লাখ প্লাস্টিক প্রতিবছর সমুদ্রের তীরে এসে জমা হয়। ১৯২২ সালে একটি মালবাহী জাহাজ হংকং থেকে আমেরিকার যাত্রাপথে ডুবে যায় এবং ওই জাহাজে ২২,০০০ প্লাস্টিকের খেলনা ছিল, সেই খেলনা গুলো আজ পর্যন্ত সমুদ্রের তীরে ভেসে আসে। এই ১০০ বছরেও সে প্লাস্টিকের খেলনা গুলোর তেমন কোনো পরিবর্তন হয় নি।

প্লাস্টিক পৃথিবীর সব জায়গাতে পাওয়া যায়। আপনি এন্টারটিকা থেকে শুরু করে বঙ্গোপসাগরের তীর সর্বত্রই প্লাস্টিক টুকরো রয়েছে। বৃষ্টি পড়লেই আমাদের দেশের সবগুলো ড্রেন প্লাস্টিকের কারণে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি করে। পার্ক থেকে শুরু করে নদীরপাড় সবখানেই যেন প্লাস্টিক; শুধু এটাই নয় পাহাড়-পর্বতে হাঁটতে গেলেও প্লাস্টিকের প্যাকেট, বোতল, প্লাষ্টিক ব্যাগের অভাব হয়না।

সমুদ্রে নিক্ষিপ্ত বেশিরভাগ প্লাস্টিক অনেক মাছ তার খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করে; এতে করে মাছের দেহে প্লাস্টিকের ক্ষুদ্র কণা প্রবেশ করে। অর্থাৎ আমরা এখন যে মাছ খাই, সেই মাছের দেহে প্লাস্টিকের ক্ষুদ্র কণা আমাদের দেহের ভিতরে প্রবেশ করছে। এতে করে পরিবেশের ক্ষতি তো হচ্ছেই এবং আমাদের অজান্তেই স্বাস্থ্যের অনেক ক্ষতি হচ্ছে। এখন আমাদের রক্তে এবং দেহের টিস্যুতে প্লাস্টিকের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। প্লাস্টিকের অস্তিত্ব যদি শরীরে বাড়তে থাকে তাহলে মানুষ ক্যান্সার, জন্মগত সমস্যা, প্রতিবন্ধীকতা সহ বিভিন্ন ধরনের রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।


প্লাস্টিক যেখানে সেখানে নিক্ষেপ করার কারণে এবং পরিবেশের বিভিন্ন স্তরে প্লাস্টিক মিশে যাওয়াতে অনেক ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছি আমরা,


  • প্লাস্টিক নদী-নালা, খাল - বিল এবং সমুদ্রে ফেলার কারণে প্লাস্টিক থেকে বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যাল পানিতে মিশে এবং এবং সেই কেমিক্যালযুক্ত পানি পান করলে শরীরের অনেক বড় ক্ষতি হতে পারে।

  • প্লাস্টিক যেখানে সেখানে নিক্ষেপ করার কারণে অনেক বন্যপ্রাণী তা না বুঝেই খেয়ে ফেলে। এতে করে দেখা গেছে, নদী-নালা, সমুদ্রের প্রাকৃতিক ভারসাম্য নষ্ট হয়। আমরা ফেইসবুকে এমন অনেক বন্যপ্রাণী অথবা পাখির ছবি দেখেছি, যা ভুল করে প্লাস্টিক খাবার মনে করে খেয়ে মারা গিয়েছে।



  • প্লাস্টিক এক ধরনের পেট্রোকেমিক্যাল পদার্থ দিয়ে তৈরি হয় এবং এতে করে পরিবেশে প্রচুর পরিমান কার্বন-ডাই-অক্সাইড নিঃসৃত হয়, যার কারণে বায়ু দূষণ হয়।


এক টুকরা প্লাস্টিক ৪০০ থেকে ৬০০ বছর সময় লাগবে মাটির সাথে মিশতে। তাই যে কোন জায়গা প্লাস্টিকের টুকরো নিক্ষেপ করার আগে এ বিষয়টা একবার হলেও চিন্তা করবেন। আমাদের সবার উচিত প্লাস্টিকের ব্যাগ বা যে কোন প্লাস্টিকের সামগ্রী সীমিত আকারে ব্যবহার করা এবং যেখানে-সেখানে নিক্ষেপ না করে যতটুকু সম্ভব রিসাইকেল করা।


45 views0 comments

5-MinsSolution

Contact us

Tel: +8801713221592

Dhaka, Bangladesh

  • Facebook

Follow us on Facebook