অল্প খরচে কিভাবে আপনার নিজের নীড় সাজাতে পারবেন ?

Updated: Nov 13, 2020


জীবনের বিভিন্ন বিষয়ের মত আপনার ডিজাইন দক্ষতাও সময়ের সাথে সাথে আরো ভাল হয়।যদি আপনি বাসায় অনেকবার নতুন ডিজাইন এবং নতুনত্ব যোগ করে থাকেন,তাহলে আপনি আপনার পছন্দের ওয়েবসাইটস,ম্যাগাজিনস,ইন্সটাগ্রাম থেকে অনুপ্রাণিত হতে পারেন আপনার ঘরকে সুন্দরভাবে সাজানোর জন্য। আপনি নতুন কৌশল, ধারনা,ব্র্যান্ড ব্যবহার করে আপনার সৌন্দর্য বোধ প্রকাশ করতে পারেন।আপনার ডিজাইন সম্বন্ধে জ্ঞান এবং বিবর্তন একটা প্রক্রিয়া;আপনি আপনার চারপাশ সবসময় সৌন্দর্যমন্ডিত রাখার জন্য নতুন পদ্ধতিগুলো খুঁজে বের করতে পারেন।যদি আপনি আপনার পুরনো আসবাবপত্রগুলো পরিবর্তন করতে চান এবং ঘরের মধ্যে নতুনত্ব আনতে চান,তাহলে এখানে যেসব পদ্ধতি উল্লেখ করা হবে সেগুলো গ্রহণ করতে পারেন।





এখানে ২৫ টি জিনিস বা বিষয়ের মাধ্যমে কীভাবে আপনার বাসাকে আপনার পছন্দমত নান্দনিক করে তুলতে পারবেন সে বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে।


১৭.মোমবাতিদান বা পিলসুজ সাজানো:

মোমবাতিদান বা পিলসুজ সাজানো
মোমবাতিদান বা পিলসুজ সাজানো

আপনার হয়তো আকর্ষণীয় মোমবাতির সংগ্রহ আছে।কিন্তু আপনার কি এগুলোর সাথে মিলিয়ে মোমবাতিদান আছে? আপনি একটা জমকালো মোমবাতিদান কিনতে পারেন।যদি এভাবে সাজানো আপনার কাছে পুরনো মনে হয়,তাহলে বিভিন্ন রঙের মোমবাতি ব্যবহার করতে পারেন।


১৮.টেবিল ক্লথ:

আপনার ডাইনিং টেবিল সুন্দর টেবিল ক্লথ দিয়ে সজ্জিত করুন।এমনকি যদি কোন বিশেষ দিন না থাকে তবুও টেবিল ক্লথের জন্য ঘরের রান্না করা খাবারই রঙিন এবং অসাধারণ মনে হবে।টেবিল ক্লথ পরিষ্কার করা সহজ এবং এটা আপনার টেবিলকে দাগ এবং ক্ষতি থেকে রক্ষা করে।


১৯.বইয়ের আলমারি বা শেলফ :


আপনার বাসায় বই রাখার আলমারি বা শেলফ রাখুন।এটা প্রতিটি আধুনিক বাসার জন্য প্রধান জিনিস।যদি আপনি বইয়ের শেলফ সম্পূর্ণ ভর্তি করার জন্য যথেষ্ট সময় না পান,তাহলে আপনি আপনার ব্যক্তিগত পছন্দমত বই শেলফে রাখতে পারেন এবং এভাবে ধীরে ধীরে একটা সুসজ্জিত লাইব্রেরি তৈরি করতে পারেন।



২০.ব্যক্তিগত সংগ্রহ:

ব্যক্তিগত সংগ্রহ

যখন ব্যক্তিগত বিষয়ের কথা আসে,তখন বাসায় আপনার ব্যক্তিগত জীবনের ছোঁয়া থাকা খুব গুরুত্বপূর্ণ।সবচেয়ে ভাল হলো আপনার জীবনের স্মৃতি এবং তার সাথে সম্পর্কিত জিনিসগুলোর সংগ্রহ বাড়ানো।শেলফে বিভিন্ন বই রাখুন এবং তার উপরে আপনার এবং আপনার পরিবারের ছবিগুলো ফ্রেমে বাধিয়ে রাখুন।অ


তীতের সুন্দর জিনিসপত্রগুলো সাজিয়ে রাখুন।


২১.এয়ার ফ্রেশনার বা সুগন্ধ বাছাই:


আপনার বাসা মনোমুগ্ধকর ঘ্রাণে সুরভিত করতে চান তাহলে বাসার জন্য একটা ভাল মানের এয়ার ফ্রেশনার কিনুন।সঠিক ঘ্রাণ পছন্দ করুন যাতে আপনার বাসা আরো বেশি আকর্ষণীয় হয়ে উঠে।


২২.চায়ের টেবিল কেনা:


"একটা সঠিক আকৃতির ও সুন্দর ডিজাইনের চায়ের টেবিল অসাধারণ কাজ করে"-বলেছেন ডিজাইনার ক্রিস্টিনা কিম।চায়ের টেবিলে আপনি সুন্দর সময় কাটাতে পারেন।


২৩.আলঙ্কারিক আয়না রাখুন:

আলঙ্কারিক আয়না রাখুন

এটা হয়তো সঠিক সময় আপনার সাধারণ আয়না বাদ দিয়ে আলঙ্কারিক আয়না বেছে নেওয়ার।এটা আপনার ঘরের সৌন্দর্য বাড়িয়ে তুলবে এবং যখন আপনি সুসজ্জিত আয়নায় নিজেকে দেখবেন আপনার মনে আনন্দ এবং ভাললাগা অনুভব হবে।



২৪.সোফার জন্য কুশন:


সোফার জন্য আরামদায়ক এবং সুন্দর ডিজাইনের কুশন এবং কভার বাছাই করুন।ঘরের সাথে মিলিয়ে ডিজাইন এবং রং বাছাই করুন।এভাবে রকমারি জিনিসের সমাবেশ আপনার ঘরের সৌন্দর্য বাড়িয়ে তুলবে।


২৫.যন্ত্রপাতি রাখা:

অবশ্যই,একটি আধুনিক বাসা দেখতে যেমন সুন্দর,তেমনি ভালভাবে এর রক্ষণাবেক্ষণও করতে হয়।সুন্দর সুসজ্জিত জিনিসপত্র সব সমস্যা সমাধান করতে পারে না।এজন্যে আপনার একটা সাধারণ যন্ত্রপাতির সেট প্রয়োজন।আপনার আসবাবপত্রগুলোতে যদি কোন সমস্যা হয় তাহলে আপনি সহজেই সেগুলো ঠিক করতে পারবেনে।এগুলো আপনার বাসা অনেক বছর পরিপাটি রাখতে সাহায্য করবে



দ্বিতীয় পর্ব পড়তে ক্লিক করুন










483 views0 comments