ফেসবুকে যে ৯ টি জিনিস কখনোই শেয়ার করবেন না

Updated: Nov 2, 2020


আজকের জেনারেশন মানেই হচ্ছে শেয়ার করার জেনারেশন।কোথায় খেতে যাচ্ছি , ঘুরতে যাচ্ছি , কার সাথে আছি , কি করছি অথবা কেমন অনুভব করছি প্রায় সব কিছু ফেইসবুক, ইনস্টাগ্রাম অথবা টুইটারে এ শেয়ার করে থাকি । কিন্তু, দৈনন্দিন এমন কিছু বিষয় আছে যা সোশ্যাল মাধ্যমে শেয়ার না করাই ভালো।


আজকের প্রতিবেদন হচ্ছে কোন টি জিনিস আপনি ফেসবুকে শেয়ার করবেন না


ভ্যাকেশন নিয়ে বিস্তারিত পোস্ট না করা:

আপনার আগাম কোনো ভ্যাকেশন নিয়ে বিস্তারিত কোনো পোস্ট শেয়ার করবেন না। আপনি হয়তো এক্সসাইটমেন্টে আপনার ভ্যাকেশনের বিস্তারিত তথ্য শেয়ার করলেন, এর ফলে আপনি যে কোনো দুষ্টচক্রের টার্গেটে পরিণত হতে পারেন। আপনার একটা স্টেটাস, মূলত পুরো বিশ্বকে জানিয়ে দিচ্ছে যে এক সপ্তাহের জন্য আপনার বাড়িতে কেউ থাকবে না।


লোকেশন শেয়ার না করা:

আপনার বর্তমান লোকেশন শেয়ার করা। এটি আশ্চর্যের বিষয় যে, আমরা এখন কে কোথায় আছি, এটা নিয়ে প্রায়ই শেয়ার দেই, কিন্তু দেবার আগে একবারও নিজেদের প্রাইভেসির কথা চিন্তা করি না। লোকেশন শেয়ার করার সাথে সাথে পুরো পৃথিবী জানাতে পারবে যে আপনি ঘরে নেই, সেক্ষত্রে আপনার ঘরে ব্রেক-ইন করার সম্ভাবনা থাকে।


পারমিশন ছাড়া ছবি শেয়ার না দেওয়া:

আমাদের সেলফোন সর্বদা আমাদের হাতে থাকে এবং ফোনে ছবি তোলা এখন ফরজ নামাজের মতো। কিন্তু, আপনার বন্ধুর কোন ছবি অথবা ভিডিও তার পারমিশন ছাড়া শেয়ার করা ঠিক নয়। আপনার কাছে হয়তো আপনার বন্ধুর কোনো ছবি হাস্যকর লাগতে পারে কিন্তু আপনার ফ্রেন্ডের কাছে তা অপমানজনক/অপছন্দকর লাগতে পারে, তাই কোন ছবি শেয়ার করার আগে পারমিশন নিয়ে নেওয়াটাই ভালো।


ক্রেডিট অথবা ডেবিট কার্ড ছবি শেয়ার না দেওয়া :


আপনি কখনোই আপনার ক্রেডিট অথবা ডেবিট কার্ড এর ছবি ফেইসবুক দিবেন না. এতে খুব সহজেই আপনার কার্ড হ্যাক হতে পারে। এমনকি ভোটার আইডি, পাসপোর্টের ছবি অথবা ড্রাইভিং লাইসেন্সর আইডি ফেইসবুক দিবেন না; এতে খুব সহজেই আপনার নিজের পরিচিতি হ্যাক হতে পারে।


বসকে নিয়ে খারাপ মন্তব্য না করা:


সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনার বসকে নিয়ে কোনো কমপ্লেইন শেয়ার না করা ভালো। আপনি হয়তো ভাবছেন, আপনার বস তো আপনার ফেইসবুক বন্ধু না, তাই সে আপনার স্ট্যাটাস সম্পর্কে জানবে না। কিন্তু দেখা যাবে, আপনারই কোনো সহকর্মী আপনার স্ট্যাটাসটা স্ক্রিনশট নিয়ে আপনার বসকে পাঠিয়ে দিয়েছে।


পারিবারিক বিষয়ে আলোচনা না করা:


আপনার পরিবাবের কারো সাথে ঝগড়া হয়েছে বা আপনার পরিবারের কাউকে কুটুক্তি করে কোনো কথা ফেসবুক শেয়ার না করা ভালো। এতে করে সমস্যার সমাধান না হয়ে সমস্যা আরো বাড়ে। ফেসবুকে আপনার হাজবেন্ডের সাথে বা ওয়াইফের সাথে ঝগড়া হয়েছে এটা নিয়ে পোস্ট না করে বরং আপনারা নিজেরা নিজেদের মধ্যে আপনাদের সমস্যার সমাধান করে নিন।


রাজনীতি বিষয়ে বুঝেশুনে আলোচনা করা:


রাজনীতি নিয়ে আপনি আপনার মতামত ফেইসবুক শেয়ার করতে পারেন। কিন্তু, এই বিষয়ে কিছু শেয়ার করার আগে আপনি খেয়াল রাখবেন তার সত্যতা কতটুকু। কারো মুখের শোনা কথা শেয়ার না করাই ভালো, এতে আপনার ভুল তথ্য শেয়ারে সমাজে বিসৃঙ্খলা সৃষ্টি হতে পারে।


পবিত্র স্থানে সেলফি না তোলা:


আজকালকার জেনারেশনের নিকট সেলফি তোলা নতুন কিছু নয়; আমরা যেখানেই যাই, সেলফি তুলি। কিন্তু খেয়াল রাখা উচিত কিছু জায়গায় সেলফি তোলা অসম্মানকর যেমন :কবরস্থান ,মসজিদ, মন্দির অথবা গির্জা। এই জায়গাগুলো সম্মানের জায়গা তাই ছবি না তুলে প্রার্থনায় মনোযোগ দেয়াটা ভালো। দয়াকরে মৃত ব্যক্তির সাথে সেলফি দিয়ে ফেসবুকে আপলোড দিবেন না, এটা খুবই আপত্তিকর বিষয়।


ধর্ম,জাত, বর্ণ নিয়ে মন্তব্য না করা:


ফেসবুকে এমন কিছু পোস্ট করা যাবে না যা অন্যকে কষ্ট দিতে পারে, যেমন: অন্য কোন ধর্ম নিয়ে ,কারো জাত নিয়ে ,কারো গায়ের রং নিয়ে মন্তব্য না করা ভালো।


ফেইসবুক এ যে কোনো কিছুই পোস্ট করার আগে চিন্তা করবেন এটা অন্য কারো ক্ষতি করতে পারে কিনা কারন আপনার একটা ভুল তথ্য শেয়ার অন্য কারো অনেক বড় ক্ষতি করতে পারে। কারো সম্পর্কে কখনোই কোনো ভুল ইনফরমেশন শেয়ার করবেন না এতে হয়তো আপনার জন্য হাস্যকর কোন বিষয় হতে পারে কিন্তু এটা অন্য একজনের লাইফে অনেক বড় একটা বিপদ হয়ে উঠতে পারে। তাই আমাদের সবারই ফেইসবুক এ কিছু শেয়ার করার আগে একটু সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত।


আমাদের আর্টিকেল ভালো লাগলে, দোয়া করে শেয়ার দিন এবং আমাদের পেজ এ লাইক দিন যেন প্রতিনিয়ত আর্টিকেল দেখতে পারেন।


https://www.facebook.com/5minssolution/
































214 views0 comments